1. admin@dainiktrinamoolsangbad.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৩:৪২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :

ফারইস্টের অর্থ আত্মসাৎ মামলায় ‘নজরুল ইসলাম, এম.এ.খালেক ও তার পুত্র কারাগারে । 

এইচ এম জুয়েল
  • আপডেট সময় : বুধবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ১৭৭ বার পঠিত

ফারইস্ট ইন্স্যুরেন্সের অর্থ আত্মসাৎ মামলায় ‘নজরুল ইসলাম, এম.এ.খালেক ও তার পুত্র কারাগারে ।

তৃর্ণমূল প্রতিনিধি:  ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড এর অর্থ আত্মসাৎ মামলায় মোঃ নজরুল ইসলাম, এম এ খালেক ও তার পুত্র রুবাইয়াত খালেক কারাগারে।

দুদকের সিনিয়র উপ-পরিচালক (অনুসন্ধান ও তদন্ত-৩) ড. মোহাম্মদ জহিরুল হুদার নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি টিম অভিযোগটি অনুসন্ধান করেন। অপর সদস্যরা হলেন, সহকারি পরিচালক শারিকা ইসলাম ও সহকারি পরিচালক বায়েজিদুর রহমান খান।  

অনুসন্ধান প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, প্রাপ্ত রেকর্ডপত্রের ভিত্তিতে পারষ্পরিক যোগসাজশে ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লি:ও (এফআইএলআইসিএল)র ১৫৮ তম পর্ষদ সভার কার্য বিবরণীর ভুয়া সার-সংক্ষেপ সৃজন করে এ সার-সংক্ষেপের বরাত দিয়ে সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক লি:র ফরেন এক্সচেঞ্জ শাখার, মতিঝিলে ‘এফআইএলআইসিএল’র নামে রক্ষিত ২২টি এমটিডিআর জামানত রেখে আত্মসাতের উদ্দেশ্যে পিএফআই প্রপার্টিজ লি:কে ৪০ কোটি টাকার ঋণ/বিনিয়োগ সুবিধা দেয়ার মাধ্যমে ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ৭০ কোটি ৮৩ লাখ ৬৯ হাজার ৪শ’৩৯ টাকা আত্মসাত করেন। যা ১৮৬০ সালের দন্ডবিধি ১০৯ ও ৪০৯ ধারা এবং মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন,২০১২ এর ৪(২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

জানা গেছে, বীমা গ্রাহকদের জমাকৃত ৮০০ কোটির অধিক টাকা আত্মসাতের অভিযোগে চলতি সেপ্টেম্বর মাসের শুরুতে শাহবাগ থানায় মামলায় দায়ের করে সিআইডি। মামলা নং ১৫(৯)২২। এরপর ১১ সেপ্টেম্বর (রবিবার) রাতে গুলশানের বাসা থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নজরুল ইসলাম, এম.এ.খালেক ও তার পুত্র রুবাইয়াত কে গ্রেফতার করে তাদেরকে আদালতে হাজির করা হয়। ১৩ সেপ্টেম্বর সুষ্ঠু তদন্তের জন্য ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বিচারক মাহবুব আহমেদ তাদের উভয়পক্ষের আইনজীবীর শুনানি শেষে তাদের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে নজরুল ইসলামের দুই দিনের রিমান্ড ও এমএ খালেক এবং তার পুত্র রুবাইয়াত খালেকের দুই দিনের জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দেন।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, এমএ খালেক, কে এম খালেদ,ফরিদউদ্দিন,মিজানুর রহমান,আসাদ খান এবং এম.এ খালেকের পুত্র শাহরিয়ার খালেদ একই সঙ্গে ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লি: এবং ‘প্রাইম এশিয়া ফাউন্ডেশন’র পরিচালনা পর্ষদ সদস্য। সুতরাং ফারইস্ট’র চেয়ারম্যান মো: নজরুল ইসলাম,অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক হেমায়তে উল্যাহ, কোম্পানি সেক্রেটারি সৈয়দ আব্দুল আজিজ এবং এফআইএলআইসিএল ও প্রাইম এশিয়া ফাউন্ডেশনের পরিচালক এম.এ.খালেক, কেএম খারেদ, ফরিদউদ্দিন, মিজানুর রহমান,আসাদ খান ও শাহরিয়ার খালেদ পরষ্পর যোগসাজশের মাধ্যমে আত্মসাতের উদ্দেশ্যে প্রতিষ্ঠানটির ৪০ কোটি টাকা তাদেরই মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান পি.এফআই প্রোপার্টিজ লি:কে ঋণ দিয়েছেন। পরবর্তীতে এ ঋণ পরিশোধ না করে আত্মসাত করেন। এর ফলে ফারইস্ট লাইফ ইন্স্যুরেন্স লি:র মোট ৭০ কোটি ৮৩ লাখ ৬৯ হাজার ৩৪৯ টাকার আর্থিক ক্ষতি হয়েছে।
এদিকে দুদকের নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র জানিয়েছে নন-ব্যাংকিং বেসরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠান ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স’ থেকে নিজেদেরই মালিকানাধী ১৩টি প্রতিষ্ঠানকে ঋণ প্রদানের মাধ্যমে অন্তত: সাড়ে ৮শ’ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয় প্রতিষ্ঠানটির বিগত পরিচালনা পর্ষদ। ব্যাপক দুর্নীতি,অনিয়ম আর লুটপাটের প্রেক্ষিতে গতবছর ১ সেপ্টেম্বর প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা পর্ষদ ভেঙ্গে দেয় বাংলাদেশ সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গ্রাহকের হাজার কোটি টাকা যুক্তরাষ্ট্রে পাচার করে বিশাল সাম্রাজ্য গড়েছেন ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম। এই টাকায় ফ্লোরিডায় নিজেদের নামে প্রাসাদসম বাড়ি এবং নিজের ও স্ত্রীর নামে তিনটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলেছেন

মূল লুটপাট হয় ২০১২ সাল থেকে ২০১৭ সালের মধ্যে। এ সময়ে কোম্পানির লাইফ ফান্ড ও এফডিআর ভেঙে যুক্তরাষ্ট্রে বিশাল সাম্রাজ্য গড়েছেন ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের বহিষ্কৃত চেয়ারম্যান মো. নজরুল ইসলাম। দুটি জমি ক্রয় দেখিয়ে সাড়ে ৩শ কোটি টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে। এছাড়াও গ্রাহকদের টাকা আত্মসাৎ করে নেওয়া হয় হাজার কোটি টাকার বেশি। আর বীমার টাকা না পেয়ে প্রতিষ্ঠানটির হাজার হাজার প্রাহক নিয়ন্ত্রক সংস্থার দ্বারে দ্বারে ঘুরছে।

এদিকে এম এ খালেক এর গ্রেপ্তারের খবর শুনে আত্মীয়-স্বজন, শুভাকাঙ্ক্ষী ও নিজ গ্রাম পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়ার রাধানগরে শোকের ছায়া নেমে আসছে। হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে কয়েকশো একার জমি নিয়ে “ডজন খানেক প্রতিষ্ঠান স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, কৃষি কলেজ, ছাত্রাবাস, শিক্ষক নিবাস ও হসপিটাল সহ মুক্তিযোদ্ধা মার্কেট নির্মাণ করেছেন অজপাড়া গাঁয়ে উপসহর তৈরি করেছেন। তার নিজ প্রতিষ্ঠানে এলাকার কয়েক হাজার বেকার যুবকদের চাকরি দিয়েছিলেন। এই সুফলভোগীরা আশাবাদী ওসেরি আইনি লড়াই করে তাদের মাঝে ফিরে আসবেন এই শিক্ষা অনুরাগী দানবীর এম এ খালেক।

এ জাতীয় আরও খবর
© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২০ দৈনিক তৃণমূল সংবাদ
Theme Customized BY Theme Park BD