1. admin@dainiktrinamoolsangbad.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৮:৩৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
হিজলায় বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী। হিজলায় বিদ্যুৎ সাব জোনাল অফিস স্থানান্তর না করার দাবীতে মানববন্ধন। দেশে ৭৯ শতাংশ পথশিশু যৌন নিপীড়নের শিকার “আজ পথশিশু দিবস। লন্ডনের ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটির কৃতিত্ব শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা দিলেন পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক। দূর্গাপুজা উপলক্ষে ব্যতিক্রমধর্মী উদ্যোগ নিয়ে প্রশংসিত কাউখালীর “ভাইস চেয়ারম্যান। পিরোজপুরে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া শারদ উপহার বিতরণ করেন -মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। হিজলা প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের নিয়ে জরুরী সভা। সন্ত্রাসীদের কোপে মঠবাড়িয়ার “জাপা নেতার পা বিচ্ছিন্ন। সাগরে ঘূর্ণিঝড়ে পড়ে ভারতে আশ্রয় নেওয়া জেলে পরিবারকে অনুদানের চেক দিলেন পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক। পিরোজপুরে সাংবাদিকদের সাথে চিত্রনায়ক জায়েদ খানের মতবিনিময়।

জাল টাকার ১৫ কোম্পানির সন্ধান!

এইচ এম জুয়েল
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৬০ বার পঠিত

দেশে জাল টাকার ১৫ কোম্পানির সন্ধান গোয়েন্দার হাতে!

তৃণমূল প্রতিনিধিঃ  গোয়েন্দাদের অনুসন্ধানে উঠে এলো জাল টাকার ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন ‘কোম্পানি’তে ভাগ হয়ে কাজ করে। সারা দেশে এমন ১৫টি জাল টাকার ‘কোম্পানি’ সন্ধান মিলেছে।

গোয়েন্দার হাতে ধরা পড়া চক্রটির প্রধান মজিবুর রহমান। দীর্ঘ এক যুগ ধরে তিনি জাল টাকার কারবারে জড়িত। তার মতে জাল টাকার ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন কোম্পানিতে ভাগ হয়ে কাজ করে। মজিবুরও একটি কোম্পানির মালিক। সারা দেশে এ রকম কোম্পানি আছে ১০ থেকে ১৫টি। মাসে প্রতিটি কোম্পানি ৫০ লাখ থেকে ১ কোটি জাল টাকা বাজারে ছাড়ে।

জাল টাকার কোম্পানি কারখানায় কাজ করে তিন ধরনের লোক। কাজ কাগজ বানানো, প্রিন্ট ও কাটিং করা। মর্কেটিংয়ে মাধ্যমেই পাইকারি ও খুচরা বিক্রি করা।

এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার হারুনুর রশীদ বলেন, তারা প্রতিদিন ১০ লাখ থেকে ১২ লাখ জাল টাকা তৈরি করে। এদের কাছ থেকে আবার একটি শ্রেণি আছে যারা এই জাল টাকার মার্কেটিং করে। মার্কেটিং করা লোকজন এই জাল টাকা কিনে নিয়ে যায়। সাধারণত প্রতি লাখ জাল টাকা বিক্রি হয় ১০ হাজার টাকায়। এরপর মার্কেটিং চক্রটি ওই এক লাখ জাল টাকা আবার ২০ হাজার টাকায় বিক্রি করে। এরা বিভিন্ন উৎসবে যখন কেনাকাটার সময় হয়, তখনই জাল টাকা বাজারে ছাড়া হয়। মার্কেটিং কোম্পানিগুলো গরুর হাট, পূজা বা কেনাকাটার জন্য খরচ করে। এভাবে দেশের বিভিন্ন এলাকায় জাল টাকা ছড়িয়ে যায়। আমরা এই চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেফতার করেছি। তারা স্বীকার করেছেন যে তারা বহুদিন ধরে এভাবে জাল টাকা তৈরি করে বাজারে ছেড়েছেন।

জাল টাকার বিপদ এড়াতে ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট লেনদেনের সময় সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর
© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২০ দৈনিক তৃণমূল সংবাদ
Theme Customized BY Theme Park BD