1. admin@dainiktrinamoolsangbad.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ১২:২৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
গণকমিশন ভিত্তিহীন এখন ১১৬ আলেম হাজার কোটি টাকার মানহানি মামলা করুক।-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। হিজলায় জেলেদের মাঝে গরু বিতরণের অনিয়ম তোপের মুখে বিতরণ স্থগিত। ভাণ্ডারিয়ায় স্কুল ছাদের পলেস্তারা খসে তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী “আধুনিকা” আহত। বাংলাদেশ বন্ধু পরিষদের ঈদ পূর্ণমিলনী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত। ভান্ডারিয়া হসপিটালে মৃত ডায়রিয়া রোগীর গায়ে স্যালাইন পুশ। হিজলায় ইউপি সদস্য সহ ৩ জনকে কুপিয়ে জখম। রাস্তায় কুড়িয়ে পাওয়া ২৫ লাখ টাকা ফেরত দিয়ে ট্রাকচালকের সততার বিরল দৃষ্টান্ত। ভাণ্ডারিয়ায় সাংবাদিকদের উদ্যোগে ইফতার ও দোয়া মাহফিল। বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে পিরোজপুরের জেলা পরিষদ প্রশাসক মহিউদ্দিন মহারাজের শ্রদ্ধা নিবেদন। পিআইআরএফ এর ইফতার ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত।।

বরগুনায় পশুর মত দাঁড় করিয়ে মোবাইলে কথা বলতে বলতে “মানবদেহে টিকা প্রদান”

নিজস্ব প্রতিনিধি:-
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২১
  • ২২২ বার পঠিত

বরগুনায় পশুরমত দাঁড়করিয়ে

 মোবাইলে কথা বলতে বলতে

 “মানবদেহে টিকা প্রদান”

মো. সাইফুল ইসলাম মিরাজ বরগুনা থেকে:-

বরগুনায় পশুর মতো দাঁড় করিয়ে মোবাইল ফোনে কথা বলতে বলতে গ্রহীতাকে করোনা ভাইরাসের টিকা প্রদান করা হয়েছে। এ ঘটনার একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে গেলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন অনেকেই।
এ কেমন টিকা প্রদান!

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সোমবার (১৮ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সদর হাসপাতালের করোনা ভাইরাসের টিকাদান কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত ওই স্বাস্থ্যকর্মীর নাম মো. এনামুল কবির। তিনি সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি (ইপিআই) এর মেডিকেল টেকনোলজিস্ট পদে বরগুনায় কর্মরত।

আর যাকে টিকা দেওয়া হয়েছে তার নাম মো. হানিফ মোল্লা। তিনি বরগুনা সদর উপজেলার এম. বালিয়াতলী ইউনিয়নের পরীরখাল এলাকার বাসিন্দা।

মো. হানিফ মোল্লা বলেন, সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে করোনা ভাইরাসের টিকার প্রথম ডোজ গ্রহণ করতে যাই। এ সময় টিকাদান কেন্দ্রের একজন কর্মী মোবাইল ফোনে কথা বলতে বলতে দাঁড়ানো অবস্থাতেই আমাকে টিকা প্রদান করেন। পরে এ ঘটনার ছবি আমি ফেসবুকে প্রকাশ করি।

তবে তাকে টিকা প্রদানকারী ওই স্বাস্থ্যকর্মীর নাম বলতে পারেননি তিনি। ফেসবুকে পোস্ট করা ছবিতে দেখা যায় হানিফ মোল্লাকে টিকা প্রদানকারী ওই স্বাস্থ্যকর্মীর হলেন- সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচির (ইপিআই) মেডিকেল টেকনোলজিস্ট মো. এনামুল কবির।

এ বিষয়ে এনামুল কবির বলেন, করোনার টিকা প্রদানের সময় হঠাৎ করে অফিস থেকে আমাকে ফোন দেওয়া হয়। তাই অনিচ্ছা সত্ত্বেও আমি ফোনটি রিসিভ করতে বাধ্য হয়েছি।

এ বিষয়ে বরগুনার পাবলিক পলিসি ফোরামের সভাপতি হাসানুর রহমান ঝন্টু বলেন, করোনার টিকা এত অবহেলায় প্রদান করা খুবই দুঃখজনক। যে কোনো কাজ একাগ্রতার সঙ্গে করা দরকার। কিন্তু এনামুল কবির যেভাবে করনার টিকা প্রদান করেছেন তা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। এ সময় বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখার অনুরোধ জানান তিনি।

এ বিষয়ে বরগুনা সিভিল সার্জন ডা. মারিয়া হাসান বলেন, বিষয়টি আমি অবগত নই। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখব।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর
© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২০ দৈনিক তৃণমূল সংবাদ
Theme Customized BY Theme Park BD