1. admin@dainiktrinamoolsangbad.com : admin :
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৩২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
পাথরঘাটায় পূজা মন্ডপে  আর্থিক সহায়তা করেন “সুভাষ চন্দ্র হাওলাদার” ভাণ্ডারিয়ায় পূজা পরিদর্শন করেন পিরোজপুরের”জেলা প্রশাসক” সুইস ব্যাংকের টাকা ফেরত পেলে দ্বিতীয় পদ্মা সেতু করব ৫০০ কোটি টাকা পুলিশকে দেব “মুসা” ভাণ্ডারিয়ায় সমবায়ীদের নিয়ে ভ্রাম্যমাণ প্রশিক্ষণ একাত্তরের চিহ্নিত রাজাকার  আমির হোসেন পালিয়ে কবরে ফেসবুক ৬ ঘণ্টা বন্ধ থাকায় ৫২ হাজার কোটি টাকার ক্ষতি সাগর মোহনায় মা ইলিশ ধরার অপরাধে ১৪জেলেকে কারাদণ্ড দেশের জেলেরা “২২দিনের বন্দী” উম্মুক্ত ভারতীয় জেলেরা! শেষ শ্রদ্ধায় “জাতীয় পার্টির মহাসচিব “বাবলু” নাসির-তামিমার “বিয়ে অবৈধ” আদালতে হাজিরের নির্দেশ

উপবৃত্তি : নগদের পোর্টালে শিক্ষার্থীদের তথ্য দেয়ার সময় বাড়ানোর দাবি

মোঃ ওসমান ডাকুয়াঃ
  • আপডেট সময় : বুধবার, ৬ জানুয়ারি, ২০২১
  • ১৫৬ বার পঠিত

ডাক বিভাগের ডিজিটাল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস নগদের পোর্টালে উপবৃত্তি পাওয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের তথ্য এন্ট্রির জন্য সময় বাড়ানোর দাবি করেছেন শিক্ষকরা। নতুন নিয়েমে প্রথমবারের মত সব প্রধান শিক্ষকদের নিজস্ব ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড ব্যবহার ডাটা লাইভ এন্ট্রি করতে হচ্ছে। আগামী ১০ জানুয়ারির মধ্যে উপবৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের তথ্য এন্ট্রি করতে বলা হয়েছে। গত ২৮ ডিসেম্বর থেকে উপবৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের তথ্য দিতে নগদ তাদের পোর্টাল ডাটা এন্ট্রির জন্য খুলে দিয়েছে। কিন্তু কাজ করতে গিয়ে অনেক সমস্যার মুখোমুখি হওয়ায় সময় বাড়ানোর দাবি জানিয়েছেন শিক্ষকরা। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে শিক্ষকরা তাদের এই দাবির কথা

জানিয়েছেন।

প্রাথমিক শিক্ষার জন্য উপবৃত্তি প্রদান প্রকল্পের ৩য় পর্যায়ে সুবিধাভোগী শিক্ষার্থীদের মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসের মাধ্যমে উপবৃত্তির টাকা বিতরণের গত ১৩ ডিসেম্বর প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ও নগদের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। শিগগিরই এ টাকা জিটুপি পদ্ধতিতে সরাসরি শিক্ষার্থী বা অভিভাবকদের কাছে পাঠানো হবে। নতুন নিয়মে উপবৃত্তির টাকা দিতে শিক্ষার্থীদের তথ্য সংগ্রহে একটি অনলাইন পোর্টাল খুলেছে ডিজিটাল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’।

যদিও শিক্ষকরা বলছেন, নগদের পোর্টালে শিক্ষকদের প্রথমবারের মতো শিশুদের উপবৃত্তির তথ্য আপলোড করতে হচ্ছে। শিক্ষকদের কিছু নতুন সিস্টেমে কাজ করতে হচ্ছে। ২৮ ডিসেম্বর থেকে ১০ জানুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষকদের তথ্য এন্ট্রি করার সুযোগ দেয়া হয়েছে। তবে, এখন পর্যন্ত অনেক শিক্ষকই উপবৃত্তির তথ্য আপলোড করতে পারেনি। নতুন পদ্ধতির কারণে অনেকেই নির্ধারিত সময়ের মধ্যে অনলাইনে তথ্য আপলোড করতে পারবেন না। শিশুদের জন্ম নিবন্ধন সনদ সংগ্রহ সময়সাপেক্ষ ব্যাপার। ইউনিয়ন অফিস থেকে ৫ থেকে ৭ দিনের আগে জন্মনিবন্ধন সনদ দিচ্ছে না। সার্ভার ডাউন দেখায় কোথাও কোথাও।  উপবৃত্তির তথ্য আপলোড করার জন্য আরও কমপক্ষে এক সপ্তাহ সময় বাড়ানো হোক।

প্রাথমিকের শিক্ষকর বলেছেন, একদিকে বই বিতরণ অন্যদিকে পুরনো এনআইডি ও নতুন স্মার্ট কার্ডের জটিলতা। অনেক অভিভাবকে নিজের ফোন নেই পাশের বাড়ীর কারো ফোন নম্বর দিচ্ছেন।  এছাড়া প্রাথমিকের অধিকাংশ অভিভাবক এসব বিষয়ে সচেতন না বলে জানিয়েছেন শিক্ষকরা। কিন্তু উল্টো অভিভাবকরা শিক্ষকদের দোষারোপ করছেন। তারা মনে করছেন শিক্ষকরা ইচ্ছে করে জটিলতা তৈরি করে রেখেছেন।

নতুন পদ্ধতি চালুর আগে শিক্ষকদের সঙ্গে মত বিনিময় করার প্রয়োজনীয়তার কথাও বলেছেন অনেক শিক্ষক।

জানা গেছে, নগদের উপবৃত্তি পোর্টালে দেশের সব প্রকল্পভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক সব ডাটা লাইভ এন্ট্রি করবেন এবং উপবৃত্তির টাকা সুবিধাভোগীদের মাঝে জিটুপি সিস্টেমে দেয়া হবে। তথ্য অন্তর্ভুক্তির ক্ষেত্রে সুবিধাভোগী অভিভাবকদের যে মোবাইল নম্বর উপবৃত্তির টাকা দেয়ার জন্য পোর্টালে এন্ট্রি করবেন ,তা অবশ্যই তার জাতীয় পরিচয় পত্র দিয়ে নিবন্ধিত হতে হবে। শিক্ষার্থীদের তথ্য অন্তর্ভুক্ত করতে প্রধান শিক্ষকদের কিছু নির্দেশনা দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

নগদের পোর্টালে (pesp.mynagad.com.bd/login) তথ্য অন্তর্ভুক্তির ক্ষেত্রে প্রধান শিক্ষকদের ইএমআইএস কোডকে ইউসার আইডি হিসেবে ব্যবহার করতে হবে। আর পাসওয়ার্ড উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের মুঠোফোনে পাঠিয়েছে নগদ। প্রধান শিক্ষকরা পাসওয়ার্ড নিজের সুবিধা মত রিসেট করতে পারবেন ও গোপনীয়তা রক্ষা করবেন।

পোর্টালে শিক্ষার্থীদের মায়ের এনআইডি নম্বর ও সেই এনআইডি দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা সিম ব্যবহার করতে হবে। যদি তা না থাকে সেক্ষেত্রে বৈধ অভিভাবকের মোবাইল নম্বর ব্যবহার করা যাবে। পোর্টালে যে মোবাইল নম্বর দেয়া হবে তা অবশ্যই সচল ও অভিভাবকের আয়ত্বে থাকতে হবে। বার্ষিক পরীক্ষায় ৪০ শতাংশ নম্বর পাওয়া শিক্ষার্থীরা উপবৃত্তি পাওয়ার জন্য নির্বাচিত হবে।

নগদ পোর্টালে ২০১৯-২০ অর্থবছরে ৩য় কিস্তিতে যেসব শিক্ষার্থীর উপবৃত্তি দেয়া হয়েছিল তাদের তথ্য প্রদর্শিত হচ্ছে। এ ডাটাগুলো থেকে প্রয়োজন অনুযায়ী সংযোজন, বিয়োজন ও পরিমার্জন করে ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের উপবৃত্তির সুবিধাভোগীদের তালিকা ও ২০১৯-২০ অর্থবছরের ৪র্থ কিস্তির উপবৃত্তির টাকা বিতরণের উপযোগী চাহিদা পোর্টালে লাইভ এন্ট্রি আগামী ১০ জানুয়ারি মধ্যে শেষ করতে হবে। এ বিষয়ে একটি নির্দেশিকাও পোর্টালে দেয়া আছে। মাঠ পর্যায়ের সব কর্মকর্তারা পোর্টালে লাইভ এন্ট্রি সংক্রান্ত যেকোন জিজ্ঞেসায় ০৯৬০৯৬১৬১৬৭ নম্বর যোগাযোগ করতে পারবেন।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর
© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২০ দৈনিক তৃণমূল সংবাদ
Theme Customized BY Theme Park BD